শখের রান্না রেসপি

হাজী বিরিয়ানী- Hazi Biriyani

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম, প্রিয় ভাই ও বোনেরা আসসালামু আলাইকুম। হাজীর বিরিয়ানি নাম তো অনেক শুনছেন মনে হয় আবার অনেক জনেই হাজীর বিরিয়ানি খেয়েছেন। এর আসল টেস্ট আপনারা বুঝতেই পারছেন সে কি রকম। পুরান ঢাকার একটি ঐতিহ্যবাহী প্রিয় খাবার হচ্ছে হাজীর বিরিয়ানি । এখন আপনাদের হাজীর বিরিয়ানি খাওয়ার জন্য বাইরে কোথাও বা রেস্টুরেন্টে যেতে হবেনা। এখন আপনি চাইলেই ঘরের মধ্যে বসে হাজীর বিরিয়ানি প্রায় 95 থেকে 96 শতাংশ তৈরি করতে পারবেন। তাহলে যারা আপনারা হাজীর বিরিয়ানি তৈরি করতে চাচ্ছেন তারা আমার আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

বিরিয়ানি রেসিপি উপকরণ সমূহ⇒

  1. তেজপাতা⇒৩ থেকে ৪ নিন
  2. ডাল চিন⇒ ৪ থেকে ৫ টুকরা নিন
  3. লং⇒ ৬ থেকে ৭ টি নিন
  4. ছোট এলাচ⇒ ৫ থেকে ৬ টুকরা নিন
  5. পেঁয়াজ⇒ বড় সাইজে পেঁয়াজ ৪ থেকে ৫ টা নিন
  6. রসুন⇒ ১ থেকে ২ টা নিন
  7. কাঁচা মরিচ⇒ ৪ থেকে ৫ টা নিন
  8. তেল⇒ ১ থেকে দেঁড় কাপ নিন
  9. ঘি⇒ সামান্য পরিমাণে নিন
  10. মাংস⇒ ১ কেজি খানেক হাড় ছাড়া মাংস নিন।
  11. বিরিয়ানি চাল⇒ ৩ কাপ পরিমাণ নিন

হাজীর  বিরিয়ানি মসল⇒

১ ইঞ্চি সাইজের দুই টুকরো যত্রি, ৭ থেকে ৮ পিচ লবঙ্গ গোলমরিচ,ছোট এলাচ ৭ থেকে ৮ টুকরা, বড় সাইজের তেজপাতা একটা,একটা জয়ফল নিন,মাঝারি সাইজের ২ থেকে ৩ টুকরা দারুচিনি, সবগুলো নেওয়া শেষ হলে কাঁচা অবস্থায় ভালোভাবে গুড়া করে নিন।

হাজী বিরিয়ানী- Hazi Biriyani

 

হাজীর বিরিয়ানি তৈরীর প্রক্রিয়া

  • প্রথম স্টেপ

প্রথমে আপনাকে প্যান বা কড়াই মধ্যে সামান্য পরিমাণ তেল দিতে হবে। তেলের মধ্যে দুই তিনটা তেজপাতা, চার থেকে পাঁচটা লং, 5 থেকে 6 টা ছোট এলাচ,  দিয়ে হালকা করে একটু ভেজে নিন।

  • দ্বিতীয় স্টেপ

এই স্টেপে 4 টেবিল চামচ পেঁয়াজ এবং রসুনের পেস্ট তৈরি করে হালকা ভেজে নেওয়া তেলে দিতে হবে। পেস্টের মধ্যে থাকবে 2 টেবিল চামচ পেঁয়াজ এবং 2 টেবিল চামচ রসুন।

উপরোক্ত উপকরণসমূহ দেওয়া হলে ভালোভাবে ভেজে নিন। ১ টেবিল চামুচ পরিমাণ আদা বাটা, ২ টেবিল চামুচ জিরার গুড়া, ২ টেবিল চামুচ গুড়া মরিচ, এবার লবন দিতে হবে আর লবন আপনাদের স্বাদ অনুযায়ী দিবেন। 

  • তৃতীয় স্টেপ

মসলাগুলো ভালোভাবে ফুটানো হলে সেখানে তৈরিকৃত হাজীর বিরিয়ানি মসলা সেখানে মিক্সচার করে দিন। তারপর সবগুলো ভালোভাবে ফুটিয়ে 1 কেজি গরুর মাংস সেখানে দিন আর মাংসগুলো যেন হাড় ছাড়া হয়।  মাংসের সাইজ একটু ছোট করে নিবেন কারণ সাইজ ছোট হলে বিরিয়ানি টি দেখতে এবং খেতে বেশ সুস্বাদু হবে।

এক্সট্রা করে কোন পানি দিতে হবে না মাংস থেকে যে পানি বের হবে তাতেই যথেষ্ট। প্যানের উপর ঢাকানা দিয়ে তারপর ভালোভাবে ফুটিয়ে নিন।সিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন মাঝেমধ্যে  1 থেকে 2 বার মাংসটি  চামচ দিয়ে নেড়ে দিন। মাংস ভালোভাবে সিদ্ধ হয়ে গেলে তা নামিয়ে রাখুন।

  • চতুর্থ স্টেপ

 কড়াই বা অন্য একটা প্যানের মধ্যে সামান্য পরিমাণ তেল নিন। তারমধ্যে 2 টেবিল চামচ ঘি দিয়ে দিন। সেখানে একটি কাটা পিয়াজ দিন এবং ব্রাউন কালার না হওয়া পর্যন্ত ভেজে নিন। 

সেখানে 3 কাপ পরিমাণ চাল দিন, চালটা আগেই ভালোভাবে শুকিয়ে নিন। ভালোভাবে ভেজে নিন, আর যে কাপে চাল নিয়েছিলেন তার ডাবল পরিমাণ পানি দিয়ে দিন।

  • পঞ্চম স্টেপ

এ পর্যায়ে চালগুলো  ভালোভাবে সিদ্ধ করে নিন। অন্য পাত্রে রাখা মাংসগুলো এই পাত্রে দিয়ে দিন। 

চুলার তাপ একটু কমিয়ে নিন একেবারে লো করে দিন।

তাহলে তো দেখতেই পারছেন এ পর্যায়ে কিন্তু হাজির বিরানি তৈরি করা শেষ। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © 2022 bdinfo71.com | All Rights Reserved.