লাইফস্টাইল

চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ১০ টি উপায়

চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ১০ টি উপায়

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম, আসসালামু আলাইকুম। সম্মানিত  ভিউয়াস  আপনারা কি চোখের মধ্যে থাকা কালো দাগ নিয়ে চিন্তিত? তাহলে আর চিন্তা করার কোন কারণ নেই। 

মানুষের মুখমন্ডলে সৌন্দর্য আর এই মুখমন্ডলের অংশ চোখের নিচে যদি কালো ছোপ পড়ে তাহলে কার না খারাপ লাগে। এমনকি চোখের নিচে কালো ছোপ পড়ার কারণে চোখের সৌন্দর্য হ্রাস পেতে থাকে।

এবং উক্ত ব্যক্তিটিকে কম বয়স থাকা সত্বেও মনে হয় যেন, বয়স অনেক বেশি। যতই মেকআপ করা হোক না কেন? চোখের কালো দাগ থেকে রেহাই পাওয়া যায় না। 

চোখের নিচে কালো দাগ দূর করনের পদ্ধতি সম্পর্কে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করব। ভাই কষ্ট করে আর্টিকেলটি লিখতেছি আপনাদের উপকারের জন্য। তাই একটাই রিকুয়েস্ট, আপনি যদি এরকম সমস্যা ফেস করেন তাহলে আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ শেষ করা না পর্যন্ত পড়ুন।

চোখের নিচে কালো দাগ কেন পরে?

চোখের নিচে কালো দাগ কেন পরে এ প্রশ্নের উত্তরেই অনেক কারণ আছে। আর আমি এখন এসব কারণ নিয়ে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করব। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক

১. টেনশন

টেনশনের কারণে মাঝে মাঝে এমন হয় যে,রাত দিন কিভাবে কেটে যায় তা সে নিজেই অনুভব করতে পারে না। এমন অবস্থায় সে রাতভর সোশ্যাল মিডিয়ায় ডুবে থাকে, টেলিভিশন দেখে থাকে, রাত জেগে অস্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ করে। যার ফলে দেখা যায় যে উক্ত ব্যক্তির চোখের নিচে কালো কালো ছোপ পড়ে।

২. পানির অভাবে

 নিয়মিত পানি পান না করার কারণে চোখের নিচে এই সমস্যাটি লক্ষ্য করা যায়। চিকিৎসকরা এক্সপেরিমেন্ট করে দেখেছেন সঠিকভাবে পানি পান না করার অভাবে রক্তসঞ্চালন কম হয় যার ফলে রক্তে  ময়লা থেকে যায় এই কারণে মুখেও চোখের নিচে পিম্পলস ও ডার্ক সার্কেল দেখা যায়। 

৩. রোদ

দীর্ঘক্ষন রোদে থাকার কারণে শরীরের মধ্যে পানির ঘাটতি দেখা দেয়। এবং দেখা যায় শরীর কালো হয়ে যায় এবং চোখের নিচে কালো ছোপ পড়ে।

৪. সস্তা মেকআপ

 আমাদের সমাজে অনেক মহিলা খুঁজে পাওয়া যাবে যারা প্রতিনিয়ত কিংবা কিছুদিন পরপর মেকআপ ব্যবহার করে। মেকাপের  ডেট এক্সপায়ার হয়ে গেলে উক্ত মেকআপ দেওয়ার কারনে চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে।

৫. ধূমপান বা মদ্যপান

অতিরিক্ত ধূমপান ও মদ্যপানের কারণে শরীরের মধ্যে থাকা রক্তনালীগুলো দৃশ্যমান হয়। যার ফলে দেখা যায় চোখের নিচে কালো দাগ ও গর্ত পড়ে।

৬. পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব

পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুম না হওয়ার কারণে এই সমস্যাটি দেখা দিতে পারে। ঘুম না পারার অভাবে ত্বকের হলুদাভাব এবং চোখের নিচে ডার্ক সার্কেল দেখা যায়। তাই একজন সুস্থ মানুষের ঘুম কমপক্ষে ৭-৯ হাওয়া উচিত।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ১০ টি উপায়

যাদের চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে তারা বাজার থেকে ঔষধ না কেনে ঘরোয়া পদ্ধতিতে চোখের নিচের কালো দাগ দূর করতে পারবে। আর কি কি বিষয় অবলম্বন করলে চোখের নিচের কালো দাগ থেকে রেহাই পাওয়া যাবে সে বিষয়ে নিচে বলার চেষ্টা করব। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাকঃ-

১, টমেটো

টমেটো এমন একটি প্রাকৃতিক উপাদান যা ব্যবহার করে চোখের নিচে থাকা কালো দাগ এবং মুখে থাকা ব্রন দূর করা যায়। তাই টমেটোর নিয়মিত ব্যবহার ফলে শরীরের ত্বককে মসৃণ করে এবং চোখের নিচে পোড়া কালো দাগ দূর করে।

তাই যারা এই সমস্যা ফেস করতেছেন তারা এই ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারে।

২. অ্যালোভেরা

 আমাদের অনেকের বাড়িতেই দেখা যায় অ্যালোভেরা গাছ লাগানো হয়। আপনারা কি জানেন এলোভেরা গাছ কতটা কার্যকরী।  অ্যালোভেরা ব্যবহারের ফলে শরীরের ত্বককে মসৃণ করে এবং চোখের নিচে থাকা কালো দাগকে দূর করে।

আপনারা চাইলেই এই উপকারী ঔষধি গাছটি বাড়িতে রোপন করতে পারেন।

৩. বাদাম তেল

 বাদাম তেল আসলে অনেক উপকারীই। যাদের চোখের নিচে কালো দাগ পড়েছে । তারা রাতে ঘুমানোর পূর্বে বাদাম তেল চোখের নিচে লাগিয়ে ঘুমানো উচিত। এতে করে ১-২ মাস ব্যবহারের ফলে চোখের  নিচে থাকা কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

 তাই আপনারা চাইলেই  বাদাম তেল বাজারজাত করতে পারেন।

৪. লেবু 

লেবু যার কথা শুনে আপনারা বুঝতে পারছেন কতটা উপকারী। হ্যাঁ বন্ধুরা, আপনারা লেবুকে কর্তন করে সেখান থেকে রস দিয়ে চোখের নিচে কালো দাগে লাগাতে পারেন। নরম কাপড় কিংবা তুলাতে লেবুর রস দিয়ে চোখের নিচে লাগাবেন। তাহলে একসময় দেখা যাবে চোখের নিচের কালো দাগ আর থাকবে না। 

আপনারা চাইলেই উপকারী গাছটি বাসায় রোপন করতে পারেন।

৫. কমলার খোসা

কমলার খোসা যে কতটা উপকারী সে বিষয়ে কি আপনার ধারণা আছে। ধারণা না থাকলে তাহলে জেনে নিন। কমলা খাওয়ার জন্য খোসা সরিয়ে খেতে হয়। আর খোসাগুলো ডাস্টবিনে ফেলে না দিয়ে ঘরোয়া পদ্ধতিতে ঔষধ তৈরি করতে পারবেন। খোসাগুলো ভালোভাবে চূর্ণ করে গোলাপ জলের সাথে পেস্ট করে ব্রণ এবং চোখের নিচে কালো দাগে লাগিয়ে দিন।  10 মিনিট যাবত্ অপেক্ষা করুন তাহলে আপনারা দেখতে পারবেন ব্রণ এবং চোখের নিচে কালো দাগের জন্য কমলার খোসা কতটা উপকারী।

তাই আপনারা যদি এরকম সমস্যা ফেইস করেন তাহলে কমলা বাজার থেকে কিনে নিয়ে আসুন।

৬. শসা

শসা তো আপনারা সালাত হিসাবে খেয়ে থাকেন। আপনি কি জানেন এই শসা কাঁচা অবস্থায় শরীরের জন্য কতটা উপকারী। আপনি নিশ্চয়ই দেখে থাকবেন যারা মেকআপ করে তারা চোখের মধ্যে  শসা ব্যবহার করে থাকে। কারণ, শসা ব্যবহারের ফলে শরীরের তাপ ঠান্ডা শসা বের করে দেয়।

আপনি যদি ঠান্ডা শসা ত্বকের মধ্যে কিংবা চোখের কালো দাগে লাগান তাহলে কিছুদিন পর এর উপকার ভোগ করতে পারবেন। 

আপনি যদি উক্ত সমস্যা ফেইস করেন তাহলে স্বল্পমূল্যে বাজার থেকে শসা ক্রয় করতে পারেন।

৭. ঠান্ডা দুধ

ঠান্ডা দুধ চোখের কালো দাগ অপসারণ করার জন্য খুবই উপকারী। আপনারা দুধ ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে নিতে পারেন আর সেই দুধ চোখের নিচে পোড়া কালো দাগ লাগাতে পারেন।

আপনারা ঠান্ডা দুধ  চোখের মধ্যে 5০10 মিনিট লাগিয়ে রাখুন নিশ্চয়ই অনেক উপকারে আসবে।

৮. কাঁচা আলু

কাঁচা আলো শুধু রান্নার কাজে ব্যবহার হয় না। কাঁচা আলু কে ঘরোয়া পদ্ধতিতে ঔষধ হিসাবে চোখের নিচে কালো দাগে প্রয়োগ করা হয়। তাই যাদের এই সমস্যা তারা বাজার থেকে কাঁচা আলু ক্রয় করে নিয়ে আসতে পারে।

৯. কাস্টার ওয়েল

যেখানে চুল এবং ত্বকের সমস্যা দেখা দেয় সেখানেই কাস্টার ওয়েল ব্যবহৃত হয়। কিন্তু কাস্টার অয়েল চোখের নিচে কালো দাগ অপসারণ করতে খুবই উপকারী। তাই আপনারা ঘুমানোর পূর্বে কাস্টার ওয়েল  চোখের নিচে কালো দাগে ব্যবহার করবেন।

 বেশ কয়েকদিন ব্যবহারের ফলে এর উপকারিতা ভোগ করতে পারবেন। 

১০. বাদাম এবং দুধের পেষ্ট

বাদাম এবং দুধ দেহের শক্তি সরবরাহ করে থাকে। এর পাশাপাশি বাদাম এবং দুধের পেস্ট চোখের কালো দাগের জন্য কতটা  যে উপকারী ব্যবহার না করা পর্যন্ত আপনারা বুঝতে পারবেন না।

তো বন্ধুরা, তিন থেকে চারটি বাদাম চুর্ণ করুন এবং খানিকটা দুধ নিয়ে পেস্ট করুন।  বাদাম এবং দুধের পেস্ট গুলো চোখের মধ্যে লাগিয়ে দিন।

নিশ্চয়ই কিছুদিন পরে এর ফল উপভোগ করতে পারবেন। 

পরিশেষে একটি কথা বলতে চাই যাদের চোখের নিচে কালো দাগ পড়েছে। তারা আমার আর্টিকেলে উল্লিখিত 10 টি ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে দেখা যাবে অর্থের সাশ্রয় হবে এবং এর কার্যকারিতা ভোগ করতে পারবেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © 2022 bdinfo71.com | All Rights Reserved.