অনলাইন ইনকাম

গ্রাফিক ডিজাইন কি? গ্রাফিক ডিজাইন কিভাবে শিখবেন?

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম ,আসসালামু আলাইকুম। গ্রাফিক ডিজাইন কি? এ বিষয়ে যদি আপনার কোনো অক্ষর জ্ঞান না থাকে।  তাহলে আজকের নিবন্ধনটি শুধু আপনার জন্য।

গ্রাফিক ডিজাইন কি? কেনই বা গ্রাফিক ডিজাইন শিখবেন? কিভাবে শিখবেন? শিখে বা লাভ কি? আপনার সব প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন আজকের নিবন্ধনটি ফাস্ট টু লাস্ট পড়ার মাধ্যমে।

গ্রাফিক ডিজাইন কারা করতে পারবে?

এই পৃথিবীতে যারা উচ্চ শিখরে আরোহন করছে, তারা কিন্তু প্রত্যেক জনেই প্রতিভাবান ব্যক্তি ছিল। প্রত্যেকটি মানুষের ভেতরে প্রতিভা সুপ্ত অবস্থায় আছে। আবার কেউ প্রকাশ করে খেলাধুলায়, কেউবা প্রকাশ করে গান বাজনায়,আবার কেউবা প্রকাশ করেছে চিত্রাঙ্কনে।

যদি আপনার ভিতরে চিত্রাঙ্কনের প্রতিভা থাকে। তাহলে আপনাকে গ্রাফিক ডিজাইন প্লাটফর্মে স্বাগতম।  প্রতিভার জোরে আপনি অনেক দূর পর্যন্ত এগিয়ে যাবেন (ইনশাল্লাহ)।

বর্তমান পৃথিবীতে গ্রাফিক ডিজাইন এর চাহিদা আকাশচুম্বী।

নিজেকে যদি আপনি গ্রাফিক ডিজাইনার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেন, তাহলে আপনি গ্রাফিক ডিজাইনে শক্তপোক্ত ভাবে ক্যারিয়ার গঠন করতে পারবেন।

শুধু অঙ্কনে যে, একজন দক্ষ গ্রাফিক ডিজাইনার হওয়া যায় এটি সম্পূর্ণ ভুল ধারণা।শুধু অংকন করার মাধ্যমে যে, একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হওয়া যাইত। তাহলে বাংলাদেশের অলিতে গলিতে গ্রাফিক ডিজাইনার ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকতো।

আপনাকে ডিজাইনের প্রতি যথেষ্ট ক্রিয়েটিভিটি থাকতে হবে। সমায়ের সঠিক মূল্যায়ন করে, মানুষজনের কাছে এমন ভাবে উপস্থাপন করতে হবে যেন, তারা গ্রাফিক ডিজাইনে ভাষা বুঝতে পারে। তাহলে আপনার সফলতা আপনার দরজায় কড়া নাড়বে।

একটি বিষয় আপনাকে বুঝতে হবে যে, ডিজাইন হলো একটি শিল্প। আর এই শিল্পকে মাধুর্য দিয়ে ফুটিয়ে তুলে মানুষের মনে জায়গা করে নিতে হবে।

গ্রাফিক ডিজাইন কি বা কাকে বলে?

গ্রাফিক ডিজাইন হল একটি বৃহৎ অনলাইন প্লাটফর্ম। শুধু Logo,Vector এবং Illusions  এর মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। এসব তো গ্রাফিক ডিজাইনের কিছু অংশ মাত্র। গ্রাফিক ও ডিজাইন শব্দ দুটিকে একটু আলোচনা করলে দেখা যাবে গ্রাফিক যার অর্থ কালার এর মিশ্রণ, আর ডিজাইন যার অর্থ নকশা।

অনেকগুলো কালারের মিশ্রণের ফলে যে নকশা চিত্রের মাধ্যমে প্রকাশ করা যায় তাকে গ্রাফিক ডিজাইন বলে।

গ্রাফিক ডিজাইন কেন শিখবেন?

 অনলাইন তো অনেক মার্কেটপ্লেস রয়েছে আর সেখানে তো কোন জবের অভাব নাই। নানারকম ক্যাটাগরির জব ছেড়ে কেন আপনি গ্রাফিক ডিজাইন শিখবেন।

Freelanching Market গ্রাফিক ডিজাইনের ডিমান্ড এখন অনেক বেশি। সেখানে হাজারো মানুষের ক্যারিয়ার গঠন করছে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকামের মাধ্যমে।

আমি কোন গল্প করছি না।কারণ,এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট।আমি সিরিয়াসলি বলছি ভাই পাঁচ দামের চকলেট থেকে শুরু করে কোটি টাকা দামের সিনেমা পর্যন্ত গ্রাফিক ডিজাইনের মাধ্যমে তৈরি করা হচ্ছে।

আপনি যদি ভাই অনলাইন মার্কেটপ্লেসে ক্যারিয়ার গঠন করতে চান ।তাহলে আপনি যথেষ্ট সময় এবং অর্থ দিয়ে গ্রাফিক ডিজাইন শিখুন।  আমি আশাবাদী নিশ্চয় এর ভালো ফল পেয়ে যাবেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে কি কি লাগে?

১ . ইচ্ছা ও প্রতিভা শক্তি জাগ্রতঃ  সো ভিউয়াস, আপনার কাজের প্রতি যদি জন্মায়, তাহলে আপনার দ্বারা কাজ করা অসম্ভব। প্রথমত, গ্রাফিক্স ডিজাইনার টুলস গুলো একটু কঠিন হতে পারে তাই বলে হাল ছেড়ে দিবেন এটা কখনো করবেন না। আপনার প্রতিভাকে জাগ্রত করুন ইনশাআল্লাহ সফলতা আপনার দরজায় কড়া নাড়বে।

২. রঙ সিলেকশনঃ  রং সিলেকশন এর ক্ষেত্রে আপনাকে কঠোর নজরদারি করতে হবে। কোন নকশায় কোন কালার প্রয়োজন কিভাবে করবেন সে বিষয়ে আপনাকে জানতে হবে।

৩. ক্রিয়েটিভিটিঃ সময়ের সাথে সব কিছু পরিবর্তিত হচ্ছে। তাই সময়ের সাথে তালে তাল মিলিয়ে ডিজাইনের মধ্যে নতুন নতুন রূপ দিতে হবে। যেন আপনার ডিজাইন মার্কেটপ্লেসে প্রচুর চাহিদা পায়।

গ্রাফিক ডিজাইন এর জন্য কোন কোন বিষয় শিখতে হবে?

গ্রাফিক ডিজাইনের শাখা প্রশাখা গাছের শাখা-প্রশাখার মত বিস্তৃত। কারণ গ্রাফিক ডিজাইনের অনেক  সেক্টর রয়েছে। আপনি কোন বিষয় শিখতে চান তা আপনি নিজে বিবেচনা করবেন। আপনি চাইলে একাধিক বিষয়ও গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে পারবেন।

তো চলুন, গ্রাফিক ডিজাইনের কোন কোন বিষয় শিখতে হবে তা এখন আলোচনা করব।

১. লোগো ডিজাইনঃ কে না চায় তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কোথা সবাই জানুক। হুম প্রত্যেকটি কোম্পানির মালিক চায় আমার প্রতিষ্ঠানের একটা নিজস্ব লোগো থাকুক। 

তাই যত দিন যাচ্ছে লোগো ডিজাইন এর চাহিদা ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই গ্রাফিক ডিজাইনের শুরুটা লোগো ডিজাইন দিয়ে শুরু করা উত্তম হবে।

২. ভিজিটিং কার্ড ডিজাইনঃ ব্যবসার উদ্দেশ্যে হোক কিংবা চাকরির উদ্দেশ্যে হোক প্রচার প্রচারণা চালানোর জন্য নিজস্ব ভিজিটিং কার্ডের প্রয়োজন পড়ে। 

তাই ভিজিটিং কার্ডের চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। লোগো ডিজাইন এর পাশাপাশি আপনারা ভিজিটিং কার্ড ডিজাইন শিখতে পারেন।

 

৩. ভেক্টর আইকন ডিজাইনঃ ভেক্টর আইকন ডিজাইনের কাজ আপনারা শিখতে পারেন। কারণ, বর্তমানে এর চাহিদা প্রচুর।

৪. পোস্টার ডিজাইনঃ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ব্যবসা বাণিজ্য, নানা রকম অনুষ্ঠানের জন্য পোস্টারের প্রয়োজন পড়ে। কেউ কেউ পোস্টার তৈরি করে পরিচিতি লাভের উদ্দেশ্যে। আবার কেউ কেউ পোস্টার তৈরি করে নির্দিষ্ট স্থান বা সময়সূচি জানার জন্য।

তাই পোস্টার ডিজাইন এর চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আপনি চাইলে পোস্টার ডিজাইন শিখতে পারেন।

৫. ওয়েবসাইট ডিজাইনঃ যারা ওয়েবসাইট ডিজাইন করে তারা কোডিংইয়ের ওয়ানডে তৈরি করে। কিন্তু কোডিং-এর আগের ওয়েবসাইটের ডিজাইন কেমন হবে সেটি মূলত গ্রাফিক ডিজাইন এর মাধ্যমে করা হয়।

৬. মোবাইল অ্যাপস ডিজাইনঃ বর্তমানে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা তুলনামূলক অনেক বেশি। আপনার মোবাইল ফোনের অ্যাপস এর ডিজাইন একজন গ্রাফিক ডিজাইনের মাধ্যমে করতে হয়। 

গ্রাফিক ডিজাইন শিখে চাকরি করার সুযোগ।

গ্রাফিক ডিজাইনে ডিগ্রী অর্জনের পর আপনি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার সুযোগ পাবেন। যেমনঃ

  • Animation designer
  • Media publishing company
  • Digital marketing agency
  • web design
  • brand identify design
  • Magazine এবং newspaper company
  • Application and Game development
  •  logo design 
  • Advertisement company

গ্রাফিক ডিজাইন করে কত টাকা আয় করা যায়।

 

চাকরির মাধ্যমে আয়

আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে যদি কোন কোম্পানিতে চাকরি করতে চান। তাহলে আপনার বেতনের মান অনেক হাইয়েস্ট থাকবে।

গ্রাফিক ডিজাইন এর প্রতি যদি আপনার দক্ষতা থাকে তাহলে আপনার মাইনে হু হু হু করে বৃদ্ধি পাবে। এককালীন আপনি চাকরির মাধ্যমে এক লক্ষ টাকার মতো বেতন পাবেন।

আর হ্যাঁ, চাকরি নেওয়ার জন্য আপনাকে গ্রাফিক ডিজাইনের উপর ডিগ্রী অর্জন করতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে আয়

ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে একটি স্বাধীন পেশা, অন্যের অধীনে থেকে কাজ করতে হয় না। আপনার মন খুশি মত এ কাজটি করতে পারবেন। 

ফ্রিল্যান্সিং কাজের দক্ষতার উপর টাকার পরিমাণ নির্ভর করে।

ঘরে বসে শিখুন গ্রাফিক ডিজাইন।

 হ্যালো ভিউয়ার্স, করোনাকালীন সময় আপনি কাজ হারিয়ে কি ঘরে বসে আছেন।  আপনাকে আর বসে থাকতে হবে না। আপনার অবসর সময় আপনি ব্যয় করতে পারেন অনলাইন জগতে কাজ করার মাধ্যমে। এতে করে আপনি আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হবেন। 

গ্রাফিক ডিজাইনের কোর্সগুলো আপনি বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে তা শিখতে পারে তা নিম্নে আলোচনা করা হল।

ইউটিউবের মাধ্যমেঃ ইউটিউব  প্লাটফর্মে আপনি গ্রাফিক ডিজাইন লিখে সার্চ দিলে। সেখানে অসংখ্য গ্রাফিক ডিজাইনের ওপর ফ্রী কোর্স গুলো দেখতে পারবেন।

আপনি ডাটা খরচ বা ওয়াইফাই খরচ চালিয়ে কোর্সগুলো নিয়মিতভাবে করতে পারেন। এতে করে গ্রাফিক ডিজাইনের ওপর আপনার অনেকটা ধারণা সৃষ্টি হবে। 

কোর্স কেনার মাধ্যমেঃ তো ভিউয়াস, গ্রাফিক ডিজাইন শেখার ওপর যাদের আগ্রহ বেশি, গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে যারা ক্যারিয়ার গঠন করতে চান। তারা চাইলেই প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার মাধ্যমে কোর্সগুলো করতে পারেন।

তবে সাবধান! অনলাইনে অনেকজন মানুষকে ধোকা দিয়ে টাকা ইনকাম করে এদের হাত থেকে সাবধান থাকবেন। আপনি আপনার চারপাশে খোঁজ নিয়ে দেখবেন graphic-designer কেউ আছে কিনা। তার কাছে পরামর্শ নিয়ে গ্রাফিক ডিজাইনের কোর্সগুলো শিখবেন।

 যার কাছে আপনি  কোর্সগুলো করবেন তার কাছে যেন আপনি লাইফ সাপোর্ট পান। সে বিষয়ে আলাপ-আলোচনা করে নিবেন। আমি মনে করি, এতে করে আপনার অনেক উপকার হবে।

গ্রাফিক ডিজাইনে জার্নিটা আপনারা Vector based software দিয়ে শুরু করা উচিত। Vector based software হল Adobe Illustrator।এই অ্যাপসটির মাধ্যমে আপনারা কাজটি শিখতে পারেন। এর পাশাপাশি অনেকগুলো সফটওয়্যার আছে জাফরান স্কিলকে বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে।

  • Vector
  • Visme
  • Gravit Design
  • Colorcinch
  • Design wizard
  • Gimp
  • Xara Designer Pro X
  • Corel Draw Graphics Suite

7 Comments

  1. সুন্দর ইনফরমেশন দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © 2022 bdinfo71.com | All Rights Reserved.